১০ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২৬শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শর্ত আরোপ না করে জনগণের রায় মেনে নিতে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র এবং স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

তিনি বলেন, ‘আজ অনেকে বড় বড় কথা বলছে, নির্বাচনের সময়ে তারা ঠিক নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে। তাই বিএনপিকে বলি, শর্ত আরোপ না করে জনগণের রায় নিতে আগামী নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করুন।’

মঙ্গলবার (২৮আগস্ট)টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

শোকের মাস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে এই শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আগামী ডিসেম্বর মাসে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আশা করি সেই নির্বাচনে সব রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করবে। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে। ইউরোপ, আমেরিকা ও ভারতের মতো বাংলাদেশেও সংবিধান অনুযায়ী সেই নির্বাচন হবে। সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। অনেকে মুখে অনেক কথা বললেও নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে অনেক রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করবে। কিন্তু কোনো দল যদি শর্ত আরোপ করে নির্বাচনে না আসে তাহলে আমাদের তো কিছু করার নেই। সংবিধান থেকে আমরা একচুলও নড়ব না।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, সংবিধানের বাইরে আমরা যাব না, এটা নিয়ে কথা বলে লাভ নেই। এর জন্য অহেতুক মাঠ গরম করবেন না। ১০ বছর আগে যা হয়েছে এখন আর তা হবে না।

বিএনপিকে আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহণের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচনকালীন সরকার বা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে আন্দোলন করে কোনো লাভ নেই। জনগণের প্রতি বিশ্বাস রাখুন। জনগণ যাদের যোগ্য মনে করবে তাদের ভোট দিয়ে বিজয়ী করবে। আমরা যদি ভোটে হেরে যাই মেনে নেব।

আর পড়ুন:   পাকিস্তানিদের জন্য বাংলাদেশের ভিসা বন্ধ

এ সময়ে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) সভাপতি এবং তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

হাসানুল হক ইনু বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর ৭১-এর মাইনাস হওয়া শক্তিকে বিএনপি রাজনীতিতে ফিরিয়ে নিয়ে আসে। আগামী নির্বাচন রাজাকার, জঙ্গি ও বেগম খালেদা জিয়াকে চূড়ান্তভাবে মাইনাস করার নির্বাচন। এই নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তাদের পরাজিত করতে হবে।

তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে কে আসলো আর না আসলো, সেটা বড় কথা নয়। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। যারা আপসের কথা বলে তারা আসলে রাজাকার ও খালেদা জিয়াকে হালাল করার কথা বলেন। কিন্তু রাজকার, জঙ্গি লালনকারীদের সঙ্গে কোনো আপস হবে না। তাদের এই নির্বাচনের মাধ্যমে চিরতরে মাইনাস করতে হবে। তবেই আমরা উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে পারব।

এর আগে ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিমের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের নেতারা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময়ে বঙ্গবন্ধুসহ ১৫ আগস্টের সব শহীদের আত্মার মাগফিতার কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

এছাড়াও স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়, তথ্য মন্ত্রণালয়, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ, বাংলাদেশে ওয়ার্কার্স পার্টি পৃথক পৃথকভাবে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে।

এদিকে মঙ্গলবার বিকালে গোপালগঞ্জের সার্কিট হাউসে পাঁচ জেলার স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের বৈঠকে করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর, রাজবাড়ী ও শরীপুর জেলায় কর্মরত স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠককালে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বর্তমান সরকারের সময় স্বাস্থ্যসেবার ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব উন্নয়ন ঘটেছে। তৃণমূলে স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার ক্ষেত্রে হেলথ কমিউনিটি ক্লিনিক এখন বিশ্বে মডেলে পরিণত হয়েছে।