৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ || ২৩শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

দলের জাতীয় সম্মেলন ও দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে ব্যাপক প্রস্তুতি শুরু করেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। দলের সম্মেলন এ বছরের শেষ দিকে  এবং আগামী বছরের শেষে বা ২০২৪ সালের শুরুতে সংসদ নির্বাচন ঘিরে এরইমধ্যে কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত সংগঠন গোছাতে মনোযোগী দলটি। আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনা দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের জাতীয় নির্বাচন ও সম্মেলনের প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারণী পর্যায় থেকে বলা হচ্ছে, দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন হলেও আগামী জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বিরোধীপক্ষকেও মাঠে নামার সমান সুযোগ দেয়া হবে। কারও নির্বাচনী কর্মসূচিতে কোনো ধরনের বাধা দেয়া হবে না। তবে সারাদেশে দল গুছিয়ে সম্মেলনের পাশাপাশি জাতীয় নির্বাচনেও বিজয় নিশ্চিত করতে চায় আওয়ামী লীগ।

শনিবার (৭ মে) গণভবনে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সভা শেষে দলের একাধিক নেতা গণমাধ্যমের সাথে আলাপকালে ওঠে এসেছে এমন তথ্য ।

আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, আসছে ডিসেম্বরেই আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন। এরইমধ্যে দলটির ঘোষণাপত্র ও গঠনতন্ত্র আপডেট করতে বলা হয়েছে। মেয়াদোত্তীর্ণ সব জেলা-উপজলা শাখা কমিটি এবং মেয়াদোত্তীর্ণ সহযোগী সংগঠনগুলোর কমিটি ডিসেম্বরের মধ্যেই করার তাগিদ দেয়া হয়েছে।

সংগঠন গোছানোর পাশাপাশি জাতীয় নির্বাচনের জন্য ইশতেহার প্রণয়ণেরও নির্দেশনা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

একইসঙ্গে জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে তিনি পরামর্শ দেন   দলের নেতাকর্মীদের   স্ব স্ব এলাকায় জনসম্পৃক্ততা বাড়াতে।