১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ || ১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

আজমল হোসেন, মীরসরাই * মীরসরাই উপজেলার মুহুরী প্রজেক্ট এলাকায় বড় ফেনী নদীতে গোসল করতে গিয়ে ডুবে যাওয়া কিশোর উজ্জ্বলের (১২) মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

সোমবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকালে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ডুবুরিরা মরদেহটি উদ্ধার করে। উজ্জ্বল কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন উপজেলার খাগরিয়া গ্রামের আরফান আলীর ছেলে।

দীর্ঘদিন ধরে উজ্জ্বল তাঁর বাবা- মায়ের সঙ্গে ফেনী শহরের খাজুরিয়া এলাকায় থাকে।

প্রত্যক্ষদর্শী, সহপাঠী ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত শনিবার বিকেলে  ফেনী শহর থেকে পানির বোতলসহ বিভিন্ন স্ক্র্যাবের জিনিস  সংগ্রহ করার জন্য উজ্জ্বলসহ পাঁচজন পথ শিশু মুহুরী প্রকল্প এলাকায় আসে। রাত থেকে  রবিবার সারাদিন  তাঁরা সবাই এক সঙ্গে প্রকল্প এলাকায় পর্যটকদের ফেলে যাওয়া পানির খালি বোতলসহ অপ্রজনীয় বিভিন্ন পণ্য সংগ্রহ করে। পরে বিকেল  সাড়ে পাঁচটা দিকে সেগুলো বস্তায় ভরে ফেনী নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত করে  সড়কের পাশে  রেখে সবাই মিলে নদীর পানিতে  গোসল করতে যায়। গোসল সেরে নদী থেকে তোফাজ্জল,আক্তার হোসেন, হৃদয়, শাকিল উঠে এলেও উজ্জ্বল ওঠে আসেনি। এসময় তোফাজ্জলসহ অন্যরা উজ্জ্বলের খোঁজে আবার নদীতে নেমে কয়েকটি জায়গায় খুঁজতে থাকে। দীর্ঘক্ষণ চেষ্টার পর তাকে না পেয়ে তাঁরা নদী থেকে উঠে এসে আশপাশের লোকজনকে জানায়। তাঁরাও নদীতে নেমে খোঁজাখুঁজি করেন। কোথাও তাঁর সন্ধান পাওয়া যায়নি।

উজ্জ্বলের সহপাঠী তোফাজ্জল জানায়, উজ্জ্বল সহ তাঁরা ছয়জন (পথশিশু)  ফেনী থেকে বোতলসহ বিভিন্ন ভাঙাচুরা অপ্রয়োজনীয় পণ্য সংগ্রহ করার জন্য মুহুরী প্রকল্প এলাকায় আসে। রবিবার সকাল থেকে প্রকল্পের আশপাশ এলাকায় বিভিন্ন পণ্য সংগ্রহের পর তাঁরা সবাই মিলে গোসল করতে মুহুরী ব্রীজে পূর্ব পাশে নদীতে নামে। গোসল সেরে চারজন উঠে এলেও উজ্জ্বল পানিতে ডুবে যায়। উদ্ধার করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। অবশেষে সোমবার সকালে উদ্ধার করা হয়।

মীরসরাই ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের লিডার মো. আলী হোসেন জানান, রবিবার রাতে মুহুরী প্রজেক্টে একটি ছেলে পানিতে ডুবে যাওয়ার খবর আসে। সোমবার সকালে চট্টগ্রাম শহর থেকে ডুবুরি এনে উদ্ধার করে সোনাগাজী থানা পুলিশের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়।