১৮ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ || ২রা জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

মীরসরাই ইকোনমিক জোন দেশি-বিদেশি বিনিয়োগের অন্যতম আকর্ষণীয় গন্তব্য হয়ে ওঠেছে। বিনিয়োগকারীদের আকর্ষণ এতই বেড়েছে যে বর্তমানে এ অঞ্চলে জমি পাওয়া যাচ্ছে না।অনুমোদন পাওয়া বিনিয়োগ প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন হলে মীরসরাই ইকোনমিক জোন বাংলাদেশের বিনিয়োগ রাজধানী হিসেবে পরিচিতি লাভ করবে।সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা)নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী এসব কথা বলেন।তিনি আরো বলেন, “দেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোর মধ্যে মীরসরাই ইকোনমিক জোন জাতীয় উন্নয়নে ব্যাপক অবদান রাখবে।” স্টার ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কনসোর্টিয়াম লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের পরিচালক আশরাফুল হক চৌধুরী চাটগাঁরবাণীডটকমকে বলেন, “৩০হাজার একর জমিতে গড়াওঠা উপমহাদেশের বৃহৎ এ অর্থনৈতিক অঞ্চলে দেশি-বিদেশি অনেক শিল্পোদ্যাক্তা বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করছে। ইতোমধ্যে চীন, জাপান, কোরিয়া, সিঙ্গাপুরসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের উদ্যোক্তারা এ অর্থনৈতিক এলাকা পরিদর্শন করে গেছেন।” বেজার তত্ত্বাবধানে মীরসরাই, সীতাকুণ্ড ও ফেনী অর্থনৈতিক অঞ্চলকে ঘিরে গড়েওঠা শিল্পাঞ্চলকে যৌথভাবে নামকরণ করা হয়েছে ‘বঙ্গবন্ধু শেখমুজিব শিল্পনগর’। শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার দেশে যে ১০০টি অর্থনৈতিক জোন স্থাপন করছে, তন্মধ্যে এটিই হবে সর্ববৃহৎ শিল্পনগর। এখানে ১২২২টি শিল্পপ্লট তেরি করা হবে, কর্মসংস্থান হবে ১০লাখ লোকের।