১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ || ২রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

ভূগর্ভস্থ পানি হ্রাস পাওয়ায় মানবিকবিপর্যয় রোধে এবং পানির চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে সবাইকে বৃষ্টির পানি সঞ্চয় করার আহ্বান জানিয়েছেন নৌ পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান।

শনিবার ঢাকায় সেগুনবাগিচাস্থ স্বাধীনতা হলে ‘ভূগর্ভস্থ পানি হ্রাস এবং ভূগর্ভস্থ পানি পরিপূরণে বৃষ্টির পানি সঞ্চয়’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই আহ্বান জানান।

সাউথ এশিয়ান পিপলস্ ফোরাম এই সেমিনারের আয়োজন করে। ফোরামের সভাপতি লাভলী ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সংসদ সদস্য হাজেরা সুলতানা ও পানি বিশেষজ্ঞ এনামুল হক।

শাজাহান খান বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে পৃথিবীর তাপমাত্রা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রকৃতির এসব পরিবর্তনে শুধু বাংলাদেশেই নয়, সারা বিশ্বের মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। প্রকৃতির বিপর্যয় থেকে রক্ষাকল্পে সরকার নানামূখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। দক্ষিণ এশিয়ায় সড়কপথ, রেলপথ ও নৌপথের যোগাযোগ ব্যবস্থা সুগম করার লক্ষ্যে কাজ হচ্ছে। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল ও ভূটানের মধ্যে সড়কপথ চালু হয়েছে। নৌপথে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে জাহাজ চলাচল করছে।

নৌমন্ত্রী বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার আন্তর্জাতিক নদীগুলোর ন্যায্য হিস্যা আদায়ে সরকার কাজ করছে। ১৯৯৬ সনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের সাথে গঙ্গার পানির ন্যায্য হিস্যা আদায়ে চুক্তি করেছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে ২৪ হাজার কিলোমিটার নৌপথ ছিল। বিভিন্ন সরকারের অযত্নে অবহেলায় সেগুলো হারিয়ে গেছে। বর্তমান সরকার বাংলাদেশের হারিয়ে যাওয়া নদীগুলো উদ্ধারে এবং সেগুলোতে পানির প্রবাহ ধরে রাখার জন্য এ পর্যন্ত ১,৫০০ কিলোমিটার নৌপথ খনন করেছে।